সাভার নামা গেন্ডা চাঁদ খাঁ মসজিদের রাস্তাটির বেহালদশা সৃষ্টি হয়েছে বড় বড় গর্ত 

কে,এম,তোফাজ্জেল হোসেন জুয়েল (সাভার ব‍্যুরো চীফ)সাভার উপজেলা থেকে ## সাভার উপজেলার শহরের চারদিকে নতুন ধাঁচের ঝকঝকে আবাসন, শপিং মল। কিন্তু সেই শহরেই রাস্তায় চলতে গেলে হোঁচট খাওয়া দস্তুর হয়ে দাঁড়িয়েছে বাসিন্দাদের কাছে। ঘটছে দুর্ঘটনাও। সাভার ইউনিয়ন পরিষধের রাস্তা সংস্কারের অভাব-সহ একাধিক কারণে এই এক মাএ গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাটির হাল অত্যন্ত খারাপ। বাসিন্দাদের অভিযোগ, সাভার ইউনিয়ন পরিষদের চ‍্যয়ারমেন ও প্রশাসনকে বারবার সংস্কারের দাবি জানিয়ে শুধু আশ্বাস মিলেছে, কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি।
সব থেকে খারাপ অবস্থা এখন এই নামা গেন্ডার রস্তাটি। ব‍্যাংক টাউনে পৌরসভার শেষ সিমানার পড়ে নামা গেন্ডার সাভার ইউনিয়ন পরিষদের রাস্তা শুরু  থেকে নামা গেন্ডা বটতলা ব্রিজ গেট পর্যন্ত প্রায় কয় এক কিলোমিটার দীর্ঘ রাস্তাটির অবস্থা দেখলে আঁতকে উঠতে হয়। অথচ শহরের প্রাণকেন্দ্রে থাকা এই রাস্তার উপরেই রয়েছে একাধিক স্কুল ও সরকারি দফতর ছোট্র বড় শিল্প প্রতিষ্টানও । কিন্তু রাস্তাটির সর্বত্র পিচ উঠে গিয়ে অজস্র গর্ত তৈরি হয়েছে। বৃষ্টি পড়লে গর্তগুলিকে রাস্তার থেকে আলাদা করা যায় না। ফলে প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটছে।  প্রতিদিনের অভিজ্ঞতার কথা জানাতে গিয়ে স্কুল-ছাত্রী শ্রেয়া বলেন, “বর্ষাকালে প্রায় রোজই আমাদের স্কুল-বাসটা রিকশাটা  গর্তে পড়ে যায় এখানে নেই কোন সুন্দর পানি নিস্কাশনের ব‍্যবস্থা নেই সুন্দর ড্রেন ব‍্যবস্থা সরকারি ভাবে এর কোন ভালো উদ্দেগ ও না থাকায় প্রতিদিন আমার মত এলার ছোট্র বড় স্কুল গামি বাচ্চা ও মরজিদের মুসল্লিরা এসব গর্তের ভেতর পড়ে হারাচ্ছে জীবন হচ্ছে পঙ্গু।”
শুধু যান চলাচলই নয়, যাতায়াতের ক্ষেত্রেও সমস্যায় পড়তে হচ্ছে স্থানীয় বাসিন্দাদের।
 এই রাস্তা ধরেই নানান পেশার গোএের লোক দের চলা ফেরা করতে হয় যেতে হয় দুর দুরান্তের স্কুলে বা কলেজে  পড়ুয়াদের। রাস্তাটির টানেলটির পাশে একটি বড় নালা রয়েছে। বাসিন্দাদের সূত্রে জানা গিয়েছে, অল্প বৃষ্টিতেই নালার জল রাস্তায় উঠে আসে বাড়ি ঘড়ের বাতরুমের নোংরা পানি সব সময় রাস্তাটির উপড়ে ভড়ে থাকে ফলে মসজিদ গামি মুসল্লিদের নাপাক অবস্থায় মসজিদে প্রবেশ করতে হয় সব সময়  তাছাড়া ক্রমাগত বড় বড় সিমেন্টের গাড়ি ইটের গাড়ি বালুর গাড়ি  চলাচল করায় রাস্তার মাঝখানে তৈরি হয়েছে অজস্র গর্ত।
পাগলার মোড় ছাত্তার মিয়ার বাড়ি থেকে পাগলার মোড়  সংলগ্ন রাস্তাগুলিও বর্ষায় ডুব দেয় হাঁটুজলে।
রাস্তাগুলির এই রকম হাল হওয়ায় যান চলাচলের সংখ্যা ক্রমশ কমে যাচ্ছে। ফলে মার খাচ্ছে শিল্পাঞ্চলের অর্থনীতি। নামা গেন্ডার আটোরিকশা অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক বলেন, “নাগরিক পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত বলেই অটো রিকশা চালানো বন্ধ করতে পারছি না। আবার বেহাল রাস্তায় আটো রিকশা চালাতেও ভরসা পাচ্ছি না।”
স্থানীয় বাসিন্দারা জানালেন, প্রশাসনের তরফে ঘোষণা করা হয়েছে বর্ষায় রাস্তা সংস্কারের কাজ শুরু করা যাবে না। কিন্তু যে রাস্তাগুলির সংস্কার হয়ে গিয়েছে, সেগুলি নিয়েও প্রশ্ন উঠছে। দীর্ঘ ৪ বছর পরে সংস্কার হয়েছিল রাস্তাটির  কিন্তু নামা গেন্ডা এলাকাতে রাস্তার কোনও কাজ হয়নি বলে বাসিন্দাদের অভিযোগ। এই রাস্তারই নামা গেন্ডা চাঁদ খাঁ মসজিদ সংলগ্ন অংশে ফের একাধিক বড় গর্ত তৈরি হয়েছে।

Check Also

রৌমারীতে অবৈধ বালু উত্তোলন ।। আদালত স্বপ্রণোদিত হয়ে ৪২ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি।। 

কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ রৌমারী উপজেলায় ব্রম্মপুত্র নদের কিনার থেকে একটি শক্তিশালী সিন্ডিকেট দীর্ঘদিন ধরে  ড্রেজার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *