শাড়িতে লাস্যময়ী মিথিলা, পিছু ছাড়ছে না বিতর্ক

খোপার বাঁধন ছাড়া, চোখে কাজল থাকলেও কপালে টিপ নেই। ঠোঁটে-মুখে খেলে যাচ্ছে এক চিলতে হাসি। পরনে লাল রঙের সিফনের শাড়ি। আচল আর পাড়ে সোনালি সুতোর ক্লাসি জিওমেট্রিক ডিটেলিং। একাধিক স্থিরচিত্রে এমন লাস্যময়ী রূপে ক্যামেরাবন্দি হয়েছেন দেশের জনপ্রিয় মডেল-অভিনেত্রী রাফিয়াথ রশীদ মিথিলা।

মূলত কলকাতার সানন্দা পত্রিকার দুর্গাপূজা সংখ্যায় মডেল হয়েছেন মিথিলা। আর এজন্য এসব ছবি তুলেছেন তিনি। শুক্রবার দুপুরে মিথিলা তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে ছবিগুলো পোস্ট করেন। দুর্গাপূজার এ সংখ্যাটি সংগ্রহ করার আহ্বানও জানিয়েছেন এ অভিনেত্রী।

সবকিছু ঠিকই ছিল, কিন্তু বরাবরের মতো এবারো নেটিজেনদের রোষানলে পড়েছেন মিথিলা। কটাক্ষ করে মন্তব্য ছুঁড়ছেন তারা। ছবিগুলো পোস্ট করার ৪০ মিনিটের মধ্যে লাইক পড়েছে ২৪ হাজার। কিন্তু তার মধ্যে বড় অংশের নেটিজেনরা ‘হা হা হা’ রিঅ্যাক্ট দিয়েছেন। মন্তব্য করেছেন দেড় হাজারের বেশি। আর তাতেই যত আপত্তি। কারণ অধিকাংশ মন্তব্য ‘নোংরা’ ভাষায় করা হয়েছে।

তাহসান-মিথিলার একটি ছবি পোস্ট করে সাব্বির আহমেদ লিখেছেন—‘আপনাকে দেখলেই তাহসান ভাইয়ের কথা মনে পড়ে।’ আসাদ জে নূর নামে একজন লিখেছেন—‘আমার এই প্রিয় মানুষকে একটা ব্লাউজ উপহার দিতে চাই। কীভাবে তার কাছে ব্লাউজ পাঠাব? সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস কি এই দায়িত্ব নেবে?’ মিম নামে একজন মন্তব্য করেছেন—‘অসুস্থ, হতাশাগ্রস্ত, ডিপ্রেশনে ভোগা ছেলেদের জন্য এই ছবি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। মনোবল চাঙ্গা করতে সহায়তা করবে।’ এমন অসংখ্য মন্তব্যে ভরে আছে কমেন্ট বক্স।

প্রেম-বিয়েকে কেন্দ্র করে অসংখ্যবার সমালোচনার মুখে পড়েছেন মিথিলা। গত ২৪ আগস্ট মিথিলার একটি স্থিরচিত্রকে কেন্দ্র করে নেটিজেনদের সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন এই অভিনেত্রী। আবারো একই ঘটনার মুখোমুখী হলেন মিথিলা। বিতর্ক যেন তার পিছু কিছুতেই ছাড়ছে না।

ভারতীয় বাংলা সিনেমার গুণী নির্মাতা সৃজিত মুখার্জি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে রাফিয়াথ রশীদ মিথিলার সঙ্গে পরিচয় হয় তার। এরপর মনের লেনা-দেনা। এ জুটির সম্পর্ক নিয়ে জলঘোলা কম হয়নি। সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে গত ৬ ডিসেম্বর রেজিস্ট্রি বিয়ে করেন তারা। কলকাতায় সৃজিতের ফ্ল্যাটে তাদের বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। বিয়েতে সৃজিত-মিথিলার পরিবারের ঘনিষ্ঠজনরা উপস্থিত ছিলেন। তারপর গত ২৯ ফেব্রুয়ারি কলকাতায় বিবাহত্তোর সংবর্ধনার আয়োজন করেন সৃজিত। দুজনেরই এটি দ্বিতীয় বিয়ে।

বিবাহত্তোর সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের পর মিথিলা বাংলাদেশে চলে আসেন। আর সৃজিত তার সিনেমার শুটিংয়ের কাজে আফ্রিকায় যান। শুটিং শেষে সৃজিতের বাংলাদেশে আসার কথা ছিল। কিন্তু এরই মধ্যে শুরু হয় করোনা তাণ্ডব। তারপর সৃজিত আটকে থাকেন কলকাতায় আর মিথিলা বাংলাদেশে। দীর্ঘ দিন পর গত ১৫ আগস্ট কলকাতায় গিয়েছেন মিথিলা। বর্তমানে শ্বশুরবাড়িতে অবস্থান করছেন এই অভিনেত্রী।

Check Also

এক নজরে এটিএম শামসুজ্জামান

না ফেরার দেশে চলে গেলেন একু‌শে পদকপ্রাপ্ত প্রবীণ অভি‌নেতা এটিএম শামসুজ্জামান। শতাধিক চলচ্চিত্রের বহু খল …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *