‘আমাকে দেখে জজ হাসছিলো, বলেছে এতটুকু ছেলের নামে মামলা’

রাজশাহীতে ব্যবসায়ীদের নামে হয়রানিমূলক মামলা করছে কারখানা ও দোকান প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তরের পরিদর্শক। ঘটনাস্থলে না এসেই চলছে এমন মামলা। বাদ যাচ্ছে না আট বছরের শিশুও। ব্যবসায়ীরা বলছেন, এতে তারা চরম হয়রানির শিকার হচ্ছেন। গত ফেব্রুয়ারিতে সরকারি ছুটির দিন আধাবেলা দোকান খোলা রাখায় শ্রম মন্ত্রণালয়ের অধীন কারখানা ও দোকান প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তরের পরিদর্শক মামলা করেন নওহাটা বাজারের দোকান মালিক জনাব আলীর নামে। দোকানের সাইনবোর্ডে নাম ও ছবি থাকায় এই মামলার আসামি হয়েছেন জনাব আলীর আট বছরের শিশুপুত্র। এই শিশুটিকে দুইবার শ্রম আদালতে হাজির হয়ে জামিন নিতে হয়েছে। আবারও শুনানির তারিখ পড়েছে ২রা নভেম্বর।

জনাব আলীর ৮ বছরের শিশুপুত্র জোবায়ের আহমেদ বলেন, ‘আমাকে দেখে জজ হাসছিলো। বলেছে এতটুকু ছেলের নামে মামলা!’

শিশুটির বাবা মা জানান, মামলার নিষ্পত্তি নয়, আদালতে তারা জানতে চান শিশুটিকে কোনো মামলায় জড়ানো হয়েছে। জনাব আলী বলেন, ‘আমার বাচ্চা কি অপরাধ করেছে। ওর বিরুদ্ধে মামলা কি কারণে হলো। আমি এটা উনার কাছে জানতে চাই, যে এই মামলাটা করেছে।’

শিশুটির মা বলেন, ‘দুইদনি কোর্টে গিয়ে হাজিরা দিয়েছে। উকিল আবার জানুয়ারি মাসের ১ তারিখে যেতে বলেছে।’

নওহাটা বাজারের ব্যবসায়ীরা বলছেন, ঘটনাস্থলে না এসে প্রায়ই ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে মামলা করে হয়রানি করা হচ্ছে।

আসামিপক্ষের আইনজীবী এস আলম জামান রাসেল বলছেন, পরিদর্শক শিশুটিকে এভাবে মামলায় জড়িয়ে ঠিক করেননি। তিনি বলেন, ‘এটা ইনস্পেকটর কিভাবে করেছেন আমার জানা নেই। উনাকে এ মামলায় অন্তর্ভুক্ত করা উচিত হয়নি। এই মামলা আশা করি টিকবেনা।’

কর্তৃপক্ষ বলছে, পরিদর্শকের ভুলে এ মামলা হয়েছে। মামলাটি তারা প্রত্যাহার করে নেবেন। কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তরের উপ-মহাপরিদর্শক মোস্তাফিজুর রহমান ভুইয়া বলেন, ‘বাবুল মনে করেছে দুইটাই বোধহয় প্রোপাইটেরের নাম, সেই দৃষ্টিকোণ থেকেই সে মামলা করেছে। আমারা কোর্টের সঙ্গে কথা বলে প্রেয়ার দিবো যেন বাচ্চাকে এ মামলা থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়।’

বাংলাদেশ শ্রম আইন ২০০৬ এ বলা রয়েছে, সপ্তাহের যে কোন একদিন দোকান বা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। এটি বাস্তবায়ন করবে ব্যবসায়ী সমিতি বা দোকান মালিক সমিতি। তবে নওহাটা বাজারে অন্তত ৯শ’ দোকান মালিকের মধ্যে অধিকাংশেরই দাবি, কলকারখানা ও দোকান প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তরের পরিদর্শক সরেজমিনে না এসেই গণহারে মামলাগুলো করেছেন।

Check Also

নারীদের তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার বৃদ্ধিতে উঠান বৈঠক

শেখ সাইফুল ইসলাম কবির: তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহারে নারীদের উদ্বুদ্ধ করতে বাগেরহাটে উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *