পালিয়ে গিয়েও রেহাই পেলোনা মেয়েটি

মনসুর আলম খোকন,সাঁথিয়া(পাবনা)প্রতিনিধিঃ জোরপূর্ববক বিয়ে দেয়ার চেষ্টা করায় মেয়েটি প্রেমিক শামীমের হাত ধরে পাড়ি দেয় অজানার উদ্দেশ্যে। এতেও তার রেহাই মেলেনি। প্রেমঘটিত বিষয়টি শেষ র্পযন্ত থানা পুলিশ,আদালত পর্যন্ত গড়িয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ শামীমসহ ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার উত্তর শোলাবাড়িয়া গ্রামের রঞ্জু শেখের ষোড়শী মেয়ে মিরা খাতুনের সাথে পার্শ্ববর্তী মাধপুর গ্রামের মজিবুর রহমানের ছেলে শামীম হোসেনের দীর্ঘদিন ধরে মন দেয়া নেয়া চলছিল। তাদের এ সম্পর্কের কথা জানাজানি হলে মেয়ের অভিভাবকরা উদ্বিগ্ন হয়ে ওঠে। মেয়েকে পাবনা সদর উপজেলার দোগাছি গ্রামের আজিজুল হকের সাথে মেয়ের ইচ্ছার বিরুদ্ধে বিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে। এমতাবস্থায় গত ১৩ সেপ্টেম্বর দুপুরে সে প্রেমিক শামীমের সাথে অজানার উদ্দেশ্যে পারি জমায়। অনেক খোঁজাখুঁজির পর তাদের বিয়ে দেয়ার আশ্বাসে বাড়ি আনে অভিভাবকরা। গত বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) উভয়পক্ষের লোকজন নিয়ে মাধপুর বাজার এলাকায় শালিসী বৈঠক বসে। বৈঠকে বিষয়টির সুরাহা না হওয়ায় মিরা শামীমের সাথে আবার চলে যায়। ওই দিনই মেয়ের বাবা রঞ্জু শেখ বাদী হয়ে সাঁথিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করে। পুলিশ রাতেই অভিযান চালিয়ে নগরবাড়ি-ঢাকা মহাসড়কের আমাইকোলা নামক স্থান থেকে শামীম (২৫), আজিজ (৩৬), শরিফুল (২৭), মোজাম্মেল (৩৫)কে আটকসহ মিরাকে উদ্ধার করে। সাঁথিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আসাদুজ্জামান জানান, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী/০৩) এর ৭/৩০ ধারায় শামীমসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে (২৪/০৯/২০২০ তারিখে নং ২০ ) মামলা রুজু করা হয়েছে। আসামীদের কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে।

Check Also

রাজারহাটে জেলা পুলিশের উদ্যোগে ঘর পাচ্ছেন দৃষ্টি প্রতিবন্ধী খলিল

এ.এস.লিমন,রাজারহাট(কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি: তাং: ১৭-০৯-২১ইং। বাংলাদেশ পুলিশ বিভাগের সহযোগিতায় এবং কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশ বিভাগের উদ্যোগে ঘর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *