রাজধানীর গুলশানে মা-মেয়ে ভুয়া ঠিকানা ব্যবহার করে চালিয়ে যাচ্ছেন নানা অপকর্ম

 

মাসুদুর রহমান- ফাওজিয়া আকবর মুন্নি ও তার মেয়ে আশা হোসাইন পাসপোর্টে
ভুয়া ঠিকানা ব্যবহার করে চালিয়ে যাচ্ছেন নানা অপকর্ম । মুন্নির
(বি১৭৩৯৩৪৮),মেয়ে আশা হোসাইন (বিএম০৭৬৭০৭১) পাসপোর্টে রব ভবন বাসা-৩,
গুলশান নর্থ সার্কেল,গুলশান-২ নামে ভুয়া ঠিকানা ব্যবহার করা হয়েছে ।
নিজের নাম ঠিক রেখে বাকি যেসব তথ্য দিচ্ছে, তা পুরোপুরি বানোয়াট। অন্যের
ঠিকানা ব্যবহার করায় আক্তারুজ্জামান বাদী হয়ে ২০১৮ সালের ৫ মে গুলশান
থানায় (নং-২৩৭০) সাধারণ ডায়েরী করেন। পুলিশ ভেরিফিকেশনের মতো স্পর্শকাতর
বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের দায়িত্বশীলতা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে?

জানা গেছে,রাজধানীর গুলশানে বাসা নং-১২,রোড-১৩৫,গুলশান-১ ঢাকায় বসবাস
করেন মুন্নি । কিন্তু কয়েক বছর পুর্বে রব ভবন বাসা-৩, গুলশান নর্থ
সার্কেল,গুলশান-২ নামে ভুয়া ঠিকানা ব্যবহার করে পাসপোর্ট করেন মুন্নি ও
তার মেয়ে আশা। পাসপোর্ট ইস্যুর আগে যে পুলিশ সদস্য ভেরিফিকেশন করেছেন
সেটা যথার্থ ছিল না বলে মনে করছেন সচেতন মহল। এদিকে তার বিরুদ্ধে রয়েছে
অহরহ অভিযোগ । ১৫ বছর পুর্বে তার স্বামী শামীম হোসেন তালাক প্রদান করলেও
বর্তমান পরিচয় পত্রে শামীম হোসেনের নাম করা হয়েছে । হাল নাগাদের সুযোগ
আসলেও জাতীয় পরিচয় পত্র হাল নাগাদ করতে করেনি তিনি ।
কথা হলে ফাওজিয়া আকবর মুন্নি জানান, আমার পাসপোর্টের ঠিকানা পরিবর্তন
অনেক আগেই করা হয়েছে । প্রশ্নে মুঠোফোনে বলেন , করোনা ভাইরাসের জন্য নতুন
বই দিচ্ছে না তাই ডিসেম্বরে পরিবর্তন করে নিব।
ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের আগারগাঁও অফিস পার্সোনালাইজেশন সেন্টার
(প্রধান কার্যালয়) পরিচালক মোঃ সাইদুল ইসলাম বলেন, ভুয়া ঠিকানায় পাসপোর্ট
করে আমাদের কাছে কোন রিপোর্ট আসলে তখন আমরা ওটা আবার এসবির মাধ্যমে কিংবা
আগে যারা তদন্ত করে পাসপোর্ট দেয় তাদের তদন্তের প্রেক্ষিতেই যদি পাসপোর্ট
হয় , ২য় টাইম তাদের তদন্তে ভেরিফাই করাতে হয়। ভেরিফাই করার পর যদি ভুয়া
হয় পাসপোর্টটা বাতিল করে ব্লক করে দেওয়া হবে এবং আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া
হবে।

Check Also

কোচিং সেন্টারের শিক্ষক থেকে ইভ্যালির এমডি

ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম ইভ্যালির এমডি মোহাম্মদ রাসেল ছিলেন কোচিং সেন্টারের শিক্ষক। পরে চাকরি নেন ব্যাংকে। এরপর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *