যৌনতায় ভরা স্ক্রিপ্ট নিয়ে লাক্স তারকার বাসায় পরিচালক

সময়টা এখন ওয়েব সিরিজের। বর্তমানে অনলাইন প্লাটফর্মগুলোর হাতধরে সারাবিশ্বেই ওয়েব সিরিজের জয়জয়কার। তবে বাংলাদেশে ভিন্ন চিত্র। অশ্লীল দৃশ্য নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার মধ্যেই আটকে আছে দেশীয় ওয়েব সিরিজ। এক অভিনেত্রীর আপত্তিকে কেন্দ্র করে ফের নতুন করে আলোচনায় উঠে এলো বিষয়টি।

সম্প্রতি মডেল-অভিনেত্রী ফারিয়া শাহরিনের কাছে ওয়েবে সিরিজের অশ্লীল স্ক্রিপ্ট প্রস্তাব নিয়ে বাসায় আসে এক পরিচালক (নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক)। স্ক্রিপ্ট পড়েই ক্ষুদ্ধ হয়ে পড়েন ফারিয়া। স্ক্রিপ্ট নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ক্ষোভও প্রকাশ করেছেন এ লাক্স তারকা। এটি পড়ে যেকেউ বুঝতে পারবেন কতটা ‘কাঁচা ভাষায়’ লেখা!

স্ক্রিটের দুটি অংশ ফেসবুকে পোস্ট করেন ফারিয়া শাহরিন। ক্যাপশনে তিনি লিখেন, একটা ওয়েব সিরিজের অফার পেয়েছি। খুব মনোযোগ দিয়ে চিত্রনাট্য পড়ছিলাম। মনে যদিও একটা নেগেটিভ চিন্তা আগে থেকেই ছিল। ভাবছিলাম ওয়েব সিরিজের নামে এখন যা হচ্ছে, অন্তত এটা তেমন হবে না। কিন্তু পড়তে গিয়ে দেখলাম এটা আরো অনেক বেশি নোংরা।

ছবি: ফেসবুক থেকে নেয়া

ছবি: ফেসবুক থেকে নেয়া

তিনি আরো লেখেন, স্ক্রিপ্টের ভাষা দেখে মাথা ঘুরছে। এই অবস্থা কেন আমাদের দেশে? ওয়েব সিরিজ মানেই কি কাপড় খুলতে হবে? নষ্টামি- নোংরামি করতে হবে। ড্রাগ, প্রস্টিটিউশন, সেক্স-এ ভরপুর চিত্রনাট্য! পুরো স্ক্রিপ্ট দেয়া সম্ভব নয় বলে, শুধু দুটো অংশ দিলাম।

তবে কোন প্রযোজক বা পরিচালক তাকে চিত্রনাট্যটি পাঠিয়েছেন, সে বিষয়ে কিছু জানানি ফারিয়া। তবে বিষয়টি বেশ আলোচনার জন্ম দিয়েছে শোবিজে। যেখানে আদালত থেকে ওয়েব সিরিজে অশ্লীলতা ও যৌনতা প্রদর্শনের বিরুদ্ধে ঘোষণা এসেছে সেখানে এমন চিত্রনাট্য দেখে অনেকেই অবাক হয়েছেন, হতাশাও প্রকাশ করছেন।

চলতি বছরে ওয়েব সিরিজ বিতর্ক শুরু হয় গত রোজার ঈদেই। ওয়েব প্ল্যাটফর্মে প্রচার হওয়া ‘আগস্ট ১৪’, ‘সদরঘাটের টাইগার’ ও ‘বুমেরাং’ নামের ওয়েব সিরিজে কিছু অশালীন ও অশোভন দৃশ্যের পাশাপাশি রয়েছে অশ্লীল ও অশ্রাব্য সংলাপ। তারপর থেকে এ বিষয় নিয়ে সরব দেশের সাংস্কৃতিক অঙ্গন।ডেইলি বাংলাদেশ

Check Also

এক নজরে এটিএম শামসুজ্জামান

না ফেরার দেশে চলে গেলেন একু‌শে পদকপ্রাপ্ত প্রবীণ অভি‌নেতা এটিএম শামসুজ্জামান। শতাধিক চলচ্চিত্রের বহু খল …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *