আর্মেনিয়া-আজারবাইজান যুদ্ধে মৃত বেড়ে ৯৫

বিতর্কিত নাগোরনো-কারবাখ অঞ্চল নিয়ে আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের মধ্যকার যুদ্ধ তীব্র আকার ধারণ করেছে। যে কারণে বাড়ছে মৃতের সংখ্যা।

কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, যুদ্ধে সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) পর্যন্ত উভয়পক্ষের ৮৪ জন সামরিক কর্মকর্তার মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া মারা গেছেন ১১ জন বেসামরিক (আজারবাইজানের ৯ জন, আর্মেনিয়ার ২ জন)। যার মাধ্যমে মোট ৯৫ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে আর্মেনিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আর্টসান হোভান্নিসায়ান অভিযোগ করেছেন, আজারবাইজান বাহিনী কারবাখ ফ্রন্টলাইনের দক্ষিণ এবং উত্তর-পূর্ব সেক্টরে ব্যাপক হামলা চালিয়েছে। এতে অন্তত ২০০ সেনা আহত হয়েছেন। অনেকের আঘাত সামান্য হওয়ায় তারা পুনরায় যুদ্ধে যোগ দিয়েছেন।

অন্যদিকে এক বিবৃতিতে আজারবাইজানের প্রসিকিউটররা বলেছেন, আর্মেনিয়ান বাহিনীর সদস্যরা সোমবার সন্ধ্যায় আজারবাইজানের অঞ্চলে গুলি চালিয়েছে। এতে দুজন মারা গেছেন। আহত হয়েছেন কয়েকজন।

চলমান এ যুদ্ধ অবিলম্বে বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস। তিনি উভয় দেশের নেতাদের সঙ্গে আলাপ করেছেন এবং সংলাপে বসতে দুই দেশকে আহ্বান জানিয়েছেন। নিন্দা জানিয়েছেন বিশ্ব সম্প্রদায়ের শীর্ষ নেতারাও।

আর্মেনিয়া ও আজারবাইজান এক সময় সোভিয়েত ইউনিয়নের অংশ ছিল। ১৯৯১ সালে সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙে যাওয়ার পর দেশ দুটি স্বাধীন হয়। গত চার দশক ধরে নাগোরনো-কারবাখ অঞ্চল নিয়ে বিরোধে জড়িয়ে আছে দুই প্রতিবেশী। নাগোরনো-কারবাখ অঞ্চলকে আন্তর্জাতিকভাবে আজারবাইনের অংশ বলে স্বীকৃতি দেওয়া হলেও আর্মেনিয়ার নৃগোষ্ঠীর নিয়ন্ত্রণে রয়ে গেছে এলাকাটি।

Check Also

হাসপাতালের চার তলা থেকে লাফিয়ে পড়ে দুই করোনা রোগীর আত্মহত্যা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: করোনা আক্রান্ত দুজন রোগী হাসপাতাল থেকে লাফিয়ে পড়ে আত্মহত্যা করেছে। মঙ্গলবার ভারতের গুজরাট …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *