এক মাস পর হাসপাতাল থেকে রিলিজ পেলেন ইউএনও ওয়াহিদা

দীর্ঘ এক মাস পর ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্স হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেলেন দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ওয়াহিদা খানম।

বৃহস্পতিবার দুপুরে  ওয়াহিদা খানমকে ছাড়পত্র দেয়া হয়। তার চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ডের প্রধান ও ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেস অ্যান্ড হাসপাতালের ট্রমা বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. জাহেদ হোসেন এ তথ‌্য নিশ্চিত করেন।

ডা. জাহেদ হোসেন বলেন, হাসপাতাল থেকে তাকে মিরপুর সেন্টার ফর দ্য রিহ্যাবিলিটেশন অব দ্য প্যারালাইজড (সিআরপি) সেন্টারে নেয়া হবে। তিনি বলেন, ওয়াহিদা খানমের ব্রেনের একটি অংশ পুরো প্যারালাইজড ছিল। তবে এখন যথেষ্ট উন্নতি হয়েছে। তিনি এখন একা একাই হাঁটতে পারছেন। এখন তেমন কোনো রিস্ক ফ্যাক্টর নেই। ফলোআপ চিকিৎসা এবং ফিজিওথেরাপি নেয়াই এখন প্রধান কাজ।

এদিকে, গত ১৯ সেপ্টেম্বর ওয়াহিদাকে ঘোড়াঘাটের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) দায়িত্ব থেকে বদলি করে ঢাকায় নিয়ে আসা হয়। হাসপাতালে থাকায় তাৎক্ষণিকভাবে নতুন কোনো দায়িত্ব না দিয়ে জনপ্রশসন মন্ত্রণালয়ে বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে রাখা হয়েছে তাকে। একইসঙ্গে রংপুরের পীরগঞ্জে ইউএনও হিসেবে কর্মরত তার স্বামী মো. মেসবাউল হোসেনকেও ঢাকায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সিনিয়র সহকারী সচিব হিসেবে বদলি করা হয়েছে।

গত ২ সেপ্টেম্বর রাতে ইউএনওর সরকারি বাসভবনে ঢুকে ওয়াহিদা খানম ও তার বাবা ওমর আলীর ওপর হামলা করে দুর্বৃত্তরা। এতে গুরুতর আহত হন ওয়াহিদা ও তার বাবা। উদ্ধার করে তাদের প্রথমে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে ইউএনও ওয়াহিদাকে ঢাকায় ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্স হাসপাতালে আনা হয়।

Check Also

নেত্রকোনায় বজ্রপাতে ৭ কৃষকের মৃত্যু

নেত্রকোনার কেন্দুয়া, মদন ও খালিয়াজুরীতে মাঠে কাজ করতে গিয়ে বজ্রপাতে সাতজন কৃষক মারা গেছেন। এছাড়া …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *