ঢাকা-১৮ আসনের উপনির্বাচনে চমক দেখাতে চায় জাতীয় পার্টি

ঢাকা-১৮ আসনের উপনির্বাচনে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হলেও জয়ী হতে চায় জাতীয় পার্টি (জাপা)। এই লক্ষ‌্যে স্থানীয় পর্যায়ে জনপ্রিয় ও নিবেদিত নেতাকে মনোনয়ন দিয়ে চমক সৃষ্টি করতে চায় দলটি।

দলের নীতি-নির্ধারণী সূত্রে জানা গেছে, এই আসনে জাপার প্রার্থী তালিকায় বেশ কয়েক জনের নাম এসেছে। এর মধ‌্যে নতুন মুখ হিসেবে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও উত্তরা ক্লাবের সভাপতি নাসির উদ্দিন মাহমুদের নাম শোনা যাচ্ছে সবচেয়ে বেশি। তিনি জাপা চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদেরের ঘনিষ্টজন হিসেবে পরিচিত। এলাকায়ও বেশ জনপ্রিয়। তার মতো জনপ্রিয় নতুন মুখকে প্রার্থী করে যেকোনো প্রতিদ্বন্দ্বী দলকে চ্যালেঞ্জ ছুড়তে চায় জাপা।

জানা গেছে, দল থেকে এ আসনে নির্বাচনের জন্য ইতোমধ্যে নাসির মাহমুদকে বলা হয়েছে। যদিও তিনি এখনো মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেননি। তবে, তিনি চাইলে এই আসনে তার মনোনয়ন নিশ্চিত বলে জানিয়েছেন দলটির নেতারা।

এ বিষয়ে দলের যুগ্ম দপ্তর সম্পাদক মাহমুদ আলম বলেন, ‘ঢাকা-১৮ আসনে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য নাসির মাহমুদ প্রার্থী হচ্ছেন। তিনি এই আসনে যোগ্য প্রার্থী। এই এলাকায় জনপ্রিয়তার দিক থেকে তিনি আওয়ামী লীগের প্রার্থীর চেয়েও এগিয়ে আছেন।’

জানা গেছে, মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক হাজী মুহাম্মদ নাসির উদ্দিন সরকার, জাতীয় তরুণ পার্টির সভাপতি ও দলের যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হোসেন মৃধা ও কেন্দ্রীয় সদস্য মহিবুর রহমান।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জাপার এক নেতা বলেন, ‘উত্তরা ক্লাবের সভাপতি নাসির মাহমুদকে প্রার্থী করার চেষ্টা চলছে। তিনি রাজিও হয়েছেন। যদি কোনো কারণে তিনি প্রার্থী না হন, তাহলে বাকি তিন জন থেকে একজনকে বেছে নেবে জাতীয় পার্টি।’

প্রসঙ্গত, উপনির্বাচনে মহাজোটের শরিক দল হিসেবে ঢাকা-১৮ আসন চেয়েছিল জাপা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আওয়ামী লীগের সঙ্গে সমঝোতা হয়নি তাদের। ইতোমধ‌্যে আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেছে। বাকি রয়েছে জাপার প্রার্থী ঘোষণা।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, আগামী ১০ অক্টোবর জাতীয় পার্টি ঢাকা-১৮ আসনে প্রার্থী ঘোষণা করবে। এজন্য দলের পাল্টামেন্টারি বোর্ডের সভা ডাকা হয়েছে। বোর্ডসভায় সবার অভিমত নিয়ে প্রার্থী ঘোষণা করা হবে। সমাঝোতা না হলেও উপনির্বাচনে ঢাকা-১৮ আসনে আওয়ামী লীগকে ছাড় দিচ্ছে না জাপা।

প্রসঙ্গত, ঢাকা-১৮ আসনের সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুনের মৃত্যুজনিত কারণে এই আসন শূন্য ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এরপর ১২ নভেম্বর ভোটগ্রহণের তারিখ নির্ধারণ করে ঢাকা-১৮ আসনের উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে ইসি।

তফসিল অনুযায়ী—মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ১৩ অক্টোবর, মনোনয়নপত্র বাছাই ১৫ অক্টোবর, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ২২ অক্টোবর। ভোটগ্রহণ হবে ১২ নভেম্বর। ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে এই আসনে ভোট হবে।

Check Also

উত্তপ্ত বরিশাল মেয়র সাদিক কোণঠাসা, প্রশাসনও কাঠগড়ায়

অনেকটাই কোণঠাসা হয়ে পড়েছেন বরিশাল সিটি করপোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ। বুধবার রাতে ইউএনওর বাসায় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *