দুদকের মামলায় লক্ষ্মীপুর আদালতের গাড়িচালক কারাগারে

আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুদকের মামলায় লক্ষ্মীপুর জজ আদালতের গাড়িচালক নূর হোসেন পাটওয়ারীকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। একই অভিযোগে তার ভাই আমির হোসেন পাটওয়ারীকেও কারাগারে পাঠানো হয়।

রোববার দুপুরে লক্ষ্মীপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক রহিবুল ইসলাম তাদের আদালতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

আদালতের পিপি জসিম উদ্দিন বলেন, দুদকের মামলায় নূর হোসেন ও আমির হোসেন আদালতে আত্মসমর্পন করে জামিন চান। আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে পাঠানো নির্দেশ দেয়।

আসামিদের আইনজীবী অ্যাডভোকেট হুমায়ুন কবির জানান, নূর হোসেন ও আমির হোসেন দুদককে সম্পদের হিসাব দেননি। জামিন অযোগ্য ধারা হওয়ায় তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

জানা গেছে, নূর হোসেন ও আমির হোসেন সদর উপজেলার মান্দারী ইউপির যাদৈয়া গ্রামের মোহাম্মদ উল্যা পাটওয়ারীর ছেলে। নূর হোসেন লক্ষ্মীপুর জজ আদালতের গাড়িচালক ও আমির হোসেন ব্যবসায়ী।

এজাহার সূত্রে জানা গেছে, আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও ভোগ দখলে থাকার অভিযোগে দুদকের নোয়াখালী সমন্বিত জেলা কার্যালয় ২০১৯ সালের ৮ জুলাই নূর হোসেন ও আমির হোসেনকে সম্পদ বিবরণী দাখিলের নোটিশ জারি করে। এর আগে, ওই কার্যালয় তাদের বিরুদ্ধে অনুসন্ধানী প্রতিবেদন করে। ২০১৯ সালের ১৯ নভেম্বর দুদকের প্রধান কার্যালয় নোয়াখালী কার্যালয়কে ওই দুই ভাইয়ের সম্পদ বিবরণীর আদেশ জারির নির্দেশ দেয়। এ প্রেক্ষিতে একই বছর ২৯ ডিসেম্বর নোয়াখালী কার্যালয় বিবরণীর আদেশ জারি করেন। এরমধ্যে নূর হোসেনকে চলতি বছরের ২ জানুয়ারি ও আমির হোসেনকে ১৬ ফেব্রুয়ারি সম্পদ বিবরণীর ফরম বুঝিয়ে দেয়া হয়।

একইসঙ্গে দুদকের নোয়াখালী কার্যালয়ের উপ-সহকারী পরিদর্শক আবুল কালাম আজাদ তাদের ফরম বুঝিয়ে দিয়ে অফিস কপিতে স্বাক্ষর নেন। কিন্তু ফরম বুঝে পাওয়ার দিন থেকে ২১ কার্যদিবসের মধ্যে সম্পদ বিবরণী দাখিল করার কথা থাকলেও তারা তা করেননি। এমনকি তারা সময় বাড়ানোর আবেদনও করেননি। এজন্য দুদক আইন ২০০৪ এর ২৬(২) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ করায় তাদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা করা হয়। এরপরও তারা সম্পদের হিসাব দুদকের কাছে জমা না দেয়ায় আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়।

Check Also

দুমকিতে সড়ক নির্মাণের কাজ শেষ না হতেই নদীতে বিলীন সড়ক।

মো.সুমন মৃধাঃ দুমকি (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর দুমকিতে নির্মাণের ৬ মাসেই নদীতে ভেঙে যাচ্ছে এলজিইডির পাকা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *