১৬ বছর আগে, হটাৎ ওবায়দুল কাদের এই কথা কেন বললেন ?

যারা পত্রিকার নিয়মিত পাঠক ও রাজনীতি নিয়ে ব্যাস্ত তারাই কেবল জানেন বিএনপি মহা সচিব মান্নান ভূঁইয়া এর সেই বিখ্যাত রাজনৈতিক ডায়লগ।২০০৪ সালের রাজনৈতিক ডায়লগটি ওবায়দুল কাদেরের মুখে আবার শুনা গেল। ২০০৪ সালে ২১ ই আগস্ট এর পর বাংলাদেশের রাজনীতি ছিল খুবেই ঘোলাটে পরিস্তিতি,সরকার অবস্থা ছিল খুবই নাজুক। সরকারের উপর বিদেশী চাপ সহ প্রশাসনিক নানান চাপে অবস্থা খুবেই নড়বড়ে ছিল। বিরোধীদল তথা বর্তমান আওমীলীগ সরকার ও সাধারণ মানুষের নিয়মিত আন্দলোন সরকার কোনঠাসা হয়ে যায়।

রাজনৈতিক চাপ ও সরকারকে কর্তৃত্বের জায়গায় ফিরিয়ে আনতে বিএনপি মহাসচিব মান্নান ভূঁইয়া খুব শক্ত ভাবেই এই কথা বলেন ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করা যাবে না যতই চেষ্টা করুক রাজনৈতিক ভোটাধিকারেই সরকার পরিবর্তন হয়। মান্নান ভূঁইয়ার সুকৌশলী কথায় বিএনপি -জামায়াত ওই নাজুক অবস্থা কাটিয়ে উঠে যদিও ২১ ই আগস্ট এর রাজনৈতিক দৌড় আজ ও টানতে হয়।

বর্তমান সময়ে আওমীলীগ সাম্প্রতিক হ’ত্যা,ধ’র্ষণ ও দু’র্নীতি নিয়ে অনেকটা ব্যাকফুটে তবে এর থেকেও কঠিন সময় সরকার অতীতে পার করে এসেছে। এক টানা ১২ বছর ক্ষমতায় থেকে সরকার অনেক কঠিন পরিস্তিতি মোকাবেলা করে এখনও সরকারে টিকে আছে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ধ’র্ষণ বিরোধী আন্দোলনে ভর করে কোনো স্বার্থান্বেষী গোষ্ঠী যাতে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে না পারে সেদিকে সবাইকে সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়েছেন।

আজ শনিবার গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় তিনি একথা বলেন। ওবায়দুল কাদের তাঁর সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বর্ধিত সভায় যুক্ত হন।

শেখ হাসিনা সরকার শুধু ধ’র্ষণ আর নারীর প্রতি সহিংসতাই নয়, যেকোনো অন্যায় অপকর্মের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে রয়েছে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রতিটি ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করা হয়েছে, আনা হয়েছে বিচারের আওতায়।

তিনি বলেন, ক্যাসিনো বিরোধী অভিযান থেকে শুরু করে স্বাস্থ্যখাতের অনিয়ম রুখতে যে শুদ্ধি অভিযান সরকার পরিচালনা করছে তা কারো দাবির প্রেক্ষিতে নয়, স্বপ্রণোদিত হয়েই করেছে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি আন্দোলনকে ভিন্ন খাতে নিয়ে সরকারের পতন চায়। বিএনপি শান্তিপূর্ণ আন্দোলনকে সহিংস করার অপচেষ্টা করছে, সরকার এবিষয়ে সজাগ রয়েছে। যারা ষ’ড়’যন্ত্র’কারী, গু’জব রটনাকারী তাদের চিহ্নিত করার কাজ চলছে বলেও জানান কাদের।

তিনি বলেন, আন্দোলনের নামে যেকোনো ধরনের অস্থিরতা ও ষ’ড়’যন্ত্র সৃষ্টির অপপ্রয়াস জনস্বার্থে সরকার কঠোর হস্তে দমন করবে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, দলের কোনো পর্যায়েই স’ন্ত্রা’সী, ধ’র্ষক ও মা’দ’কসেবীদের আশ্রয় প্রশ্রয় দেওয়া যাবে না। কমিটি গঠনে ত্যাগী নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন করতে হবে।

Check Also

শহীদ আবরার প্রতিহিংসার রাজনীতির বলি : স্মরণসভায় নেতৃবৃন্দ

News 07-10-2021 বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেন, পিটিয়ে আবরার ফাহাদকে নৃশংসভাবে হত্যার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *