কেন্দ্র থেকে এজেন্টদের বের করে দেয়ার অভিযোগ সালাহউদ্দিনের

ঢাকা-৫ আসনের উপনির্বাচনের বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে ধানের শীষের পোলিং এজেন্টকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ করেছেন বিএনপির প্রার্থী সালাহউদ্দিন আহমেদ। তার দাবি, ‘সর্বশেষ প্রাপ্ত তথ্যমতে ১৪ ওয়ার্ডের অধিকাংশ ভোটকেন্দ্র থেকে ধানের শীষের এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে। আমি কেন্দ্র পরিদর্শন করেও আমাদের কোনও এজেন্ট পাইনি।’

শনিবার (১৭ অক্টোবর) সকালে যাত্রাবাড়ী আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে সাংবাদিকদের কাছে তিনি এ অভিযোগ করেন। এ সময় তিনি কিছু সময় বিভিন্ন ভোট কক্ষ ঘুরে দেখেন।

সালাহউদ্দিনের অভিযোগ, ‘আওয়ামী সন্ত্রাসীরা পুরো এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি করে ভোটারদের কেন্দ্রে আসতে বাধা দিচ্ছে। মানুষ ভোট দেওয়া অপেক্ষায় থাকলেও সন্ত্রাসীরা ঘরে ঘরে গিয়ে হুমকি দিয়ে আসছে যাতে কেন্দ্রে না আসে। বেশিরভাগ কেন্দ্র থেকে আমাদের এজেন্টদের বের করে দিয়েছে। এজন্য অনেক কেন্দ্রে আমাদের এজেন্ট নেই। নির্বাচন কমিশন সুষ্ঠুভাবে আজ পর্যন্ত কোনো নির্বাচন করতে পারেনি। তাই আজকের নির্বাচনও সুষ্ঠু হবে না বলেই আমি মনে করি।’

বিএনপি প্রার্থী বলেন, এটি একটি ভোটারবিহীন নির্বাচন। তারা যেভাবে ত্রাস সৃষ্টি করেছেন, এতে করে জনগণ তাদের ভোট দেবে না।

ভোট দিতে না পারার প্রসঙ্গে জানতে চাইলে সালাহউদ্দিন বলেন, ‘একাদশ জাতীয় নির্বাচনে দল থেকে ঢাকা-৪ আসনে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছিল। একারণে ঢাকা-৫ থেকে ভোটার পরিবর্তন করে ঢাকা -৪ এ নিয়ে যাই। এবার ঢাকা-৫ থেকে মনোনয়ন পাওয়ার পর ভোট স্থানান্তরে আবেদন করেছিলাম। কিন্তু নির্বাচন কমিশন সে সুযোগ দেয়নি।’

এর আগে সকাল ৯টায় এই আসনে শুরু হয় ভোটগ্রহণ। চলবে টানা বিকেল ৫টা পর্যন্ত।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) আওতাধীন ১৪টি ওয়ার্ড এবং ডেমরা, যাত্রাবাড়ী এবং কদমতলী থানার কিছু অংশ নিয়ে গঠিত এই আসনটিতে ১৮৭টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ চলছে।

ঢাকা-৫ আসনের উপনির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ছয় প্রার্থী। তাঁরা হলেন- আওয়ামী লীগের মো. কাজী মনিরুল ইসলাম, বিএনপির সালাহউদ্দিন আহম্মেদ, জাতীয় পার্টির মীর আব্দুর সবুর, গণফ্রন্টের এইচ এম ইব্রাহিম ভূঁইয়া, বাংলাদেশ কংগ্রেসের মো. আনছার রহমান শিকদার ও ন্যাশনাল পিপলস পার্টির মো. আরিফুর রহমান।

উল্লেখ্য, ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য হাবিবুর রহমান মোল্লা গত ৬ মে মারা যাওয়ায় ঢাকা-৫ আসনটি শূন্য হয়।

Check Also

ইউএনও’কে ছাড়াই বরিশালে ভুল বোঝাবুঝির নিরসন হলো যেভাবে

অবশেষে সমঝোতার মাধ্যমে বরিশাল সদরের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুনিবুর রহমানের (ইউএনও) বাসায় হামলার ঘটনার সমাধান …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *