উলিপুরে অভাবের তাড়নায় সন্তান দত্তক দেয়া সেই গৃহবধু শেফালীকে সাহায্যানুদান প্রদান

উলিপুর (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ
কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসকের নির্দেশে  উলিপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার নূর-এ জান্নাত রুমি ও মহিদেব’র উদ্যোগে নির্যাতিতা হত-দরিদ্র গৃহবধু শেফালী বেগমকে নগদ অর্থ, ছাগল, হাঁস-মুরগি ও খাদ্য পণ্য প্রদান করা হয়েছে।
রবিবার (২৯ নভেম্বর) বিকালে উপজেলার উত্তর দলদলিয়া করতোয়ার পাড় গ্রামে অবস্থানরত ঐ গৃহবধুর বাবার বাড়ীতে এসে খাদ্য সংকটে পরা পরিবারকে এ সব সাহায্যানুদান প্রদান করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, দলদলিয়া ইউ,পি চেয়ারম্যান ও উপজেলা জাপা সভাপতি আতিয়ার রহমান মুন্সি, মহিদেব যুব সমাজ কল্যাণ সংস্থার উপ-পরিচালক অমল মজুমদার , এরিয়া ম্যানেজার শ্বীদেন্দ্রনাথ দেব, স্থানীয় আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক) ফাউন্ডেশন শাখা সভাপতি মোঃ আদম আলী, ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেন খাঁন প্রমুখ।
জানাগেছে, নেশাক্ত স্বামীর দ্বিতীয় বিয়ের হিংস্রতা ও শ্বশুর বাড়ীর লোক জনের নির্যাতনের শিকার হয়ে শেফালী বেগম (৩০) নামের ঐ গৃহবধু দু’কন্যা সন্তান নিয়ে প্রায় দু’বছর থেকে বিধবা মায়ের অশ্রয়ে পিত্রালয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করে আসছিল। নিজের ও সন্তানের ভরন-পোশন না পাওয়ায় করোনা কালে খাদ্য সংকটে পরে নিরুপায় হয়ে শেফালীর মা সন্তানের প্রাণ বাচাতে ১৫ মাসের এক কন্যা শিশুকে অন্যের নিকট দত্তক দিয়েছেন। এমনি এক হৃদয় বিদারক ঘটনার খবর গত ২৫ নভেম্বর দৈনিক ইনকিলাবসহ বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় প্রকাশ পায়। যা  কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নজরে পরলে তিনি পরিবারটির খোঁজ-খবর নেন। এসময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার নূর-এ জান্নাত রুমি অসহায় শেফালীকে স্থায়ী কর্মসংস্থান, প্রশিক্ষণ, পরিবারটির সব সময় খোঁজ-খবর নেয় ও ওই গৃহবধুর দাম্পত্য পূনোরুদ্ধারসহ ভরন-পোষনের দাবী আদায়ে অভিযুক্ত স্বামী আনিছুর রহমানের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস প্রদান করেন।

Check Also

দেড় লাখ টাকায় মিনুর সাথে কুলসুমীর চুক্তি

প্রতিবেদক: চট্টগ্রামে কোহিনুর আক্তার নামে এক গৃহকর্মী হত্যা মামলায় কুলসুমী আক্তার কুলসুমীকে (৩৫) যাবজ্জীবন সাজা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *