বিরামপুরে ৪নং দিওড় ইউপির উন্নয়নে একধাঁপ এগিয়ে চেয়ারম্যান-হাফিজুর রহমান

রেজওয়ান আলী,বিরামপুর,(দিনাজপুর) প্রতিনিধি-দিনাজপুর বিরামপুর উপজেলার ৪নং দিওড় ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যানের উন্নয়ন চিত্রে একধাঁপ এগিয়ে। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ইউনিয়ন সভাপতির দ্বায়িত্ব নিয়ে একে একে ২ বারের ইউপি,চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে জনগণের উন্নয়নে কাজ করে গেছেন।

হাফিজুর রহমান ২রা এপ্রিল ২০১৬ ইং তারিখ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী নৌকা প্রতিক নিয়ে ৪নং দিওড় ইউনিয়নে ৬,২৪১ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন। উক্ত সময়ে উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে নৌকা প্রতিকে মাত্র ২টি ইউনিয়নে জয়লাভ করে আর বাঁকী ৫টি ইউনিয়নে নৌকা প্রতিক পরাজিত হন।
সেই সময় ছিল নৌকা প্রতিকের দুঃসময়।
দুঃসময়ে নৌকার হাল ধরে বর্তমান পর্যন্ত ইউনিয়নে জনগণের উন্নয়নে কাজ করে গেছেন চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান। এ পর্যন্ত তার আমলে তিনি সরকারের বিপক্ষে কোন কাজের দূর্নীতি পাওয়া যায়নি মর্মে পর্যবেক্ষণে জানা যায়। এ বিষয়ে অত্র ইউনিয়ন বাসির নিকট জানতে চাইলে-
তারা বলেন সরকারি দলের প্রতিক নৌকা আমাদের অনেক উন্নয়ন করেছেন।
আরও জানা যায়,প্রতিটি ওয়ার্ড পর্যায়ে মোড়ে সৌর বৈদ্যুতিক বাতি,রাস্তা ঘাট,কালভাট,মসজিদ,মাদ্রাসা,এতিমখানা,কবরস্থান সহ উল্লেখযোগ্য প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন মূলক কাজ করে গেছেন। তারা আরও বলেন,বয়স্ক ভাতা,বিধুবা ভাতা,মাতৃত্বকালিন ভাতা সহ সকল প্রকার জনগণের ভাতা ভোগীর ব্যবস্হা করেছেন।
ইউপির উন্নয়নে সৎ ও নিষ্ঠার সাথে জনগণের কল্যাণে নিবেদিত প্রাণ চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সরকারের পক্ষে উইপি ৪নং দিওড়ে ইউপি সভাপতির দায়িত্ব অতি গুরুত্ব সহকারে পালন করে আসছেন। ইউনিয়ন ভূক্ত ৯টি ওয়ার্ডে সদস্য বৃন্দের সমন্বয় বিষয়ক আলোচনা সভা ও সরকারের পক্ষ থেকে আসা ত্রান সামগ্রিক বিষয়ে সঠিক ভাবে পর্যালোচনা সাপেক্ষে ত্রাণ সামগ্রী প্রতিটি জনগণের দ্বারে দ্বারে বিতরণ করেছেন।

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ মালা যথাযথ ভাবে পালন করেছেন। সরকারের দিক নির্দেশনা পালনে সার্বিক ভূমিকায় সহযোগিতা প্রদান করেছেন দিনাজপুর ৬,আসনে মাননীয় সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক এমপি ও স্হানীয় দলীয় নেতৃবৃন্দ। এ বিষয়ে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে এর বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন আমি সরকারের পক্ষে নৌকা প্রতিকে চেয়ারম্যান পূনরায় নৌকা প্রতিক নিয়ে নির্বাচন করতে মাঠে কাজ করছি।
যারা তার বিপক্ষে মাঠে নেমেছেন এ বিষয়ে দলীয় সিদ্ধান্তে সব হবে,আমি যদি নৌকা প্রতিকে চেয়ারম্যান হয়ে ভালো কাজ করে থাকি তবে পূনরায় আমাকেই নৌকা প্রতিক বরাদ্দ দিবেন ইনশাআল্লাহ। আর যারা সূযোগ নেওয়ার প্রত্যাশায় রয়েছেন তাদের কে সরকার দলীয় ভাবে প্রকৃত সদস্য হতে হবে।
অন্য উপজেলায় বসবাসরত কোন প্রার্থী আমাদের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতিক পাওয়ার কোন প্রশ্ন আসে না। এ বিষয়ে জনসাধারণের নিকট জানতে চাইলে তারা আরও বলেন যে,বাংলাদেশে এই প্রথম এক উপজেলার লোক আমাদের এলাকায় এসে চেয়ারম্যান হওয়ার প্রত্যাশায় জনগণকে ভূলানোর জন্য পাড়া মহল্লায় যুবকদের মধ্যে খেলার আয়োজন করে বেড়াচ্ছে।

জনসাধারণ বলেন আমরা কারো চালাকির ফাঁদে পড়ব না,কেহ যেন এমন চালাকির ফাঁদে না পড়ে সে জন্য সকলকে স্বজাগ থাকার আহব্বান জানান।
প্রকৃত ৪ নং দিওড় ইউনিয়ন বাসি জন্মগত ভাবে আওয়ামী লীগ সদস্য হতে হবে নচেৎ স্বার্থ সিদ্দির জন্য জনগনকেই ভূগতে হবে বলে জানান। সরকারি দলীয় প্রতিক নৌকার মর্যাদা যে রাখতে পারবে তাকেই আমরা আমাদের মূল্যবান ভোট প্রদান করব।

এমন একজন প্রার্থী রয়েছে তিনি হলেন হাফিজুর রহমান তিনি ২ বারের নির্বাচিত নৌকা প্রতিকে চেয়ারম্যান তাকে আমরা কখনও ভূলতে পারব না।
৪নং ইউনিয়নের উন্নয়নের ধাঁরা অব্যাহত রাখতে হাফিজুর রহমান চেয়ারম্যান কে প্রয়োজন,তার স্থলাভিষিক্ত অন্য কেহ হতে পারবেনা মর্মে মন্তব্য করেন। এ বিষয়ে চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান বলেন,আমি নৌকা প্রতিক নিয়ে যে কাজ করেছি তা একমাত্র সম্ভব হয়েছে মাননীয় জাতীয় সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক এমপি ও স্হানীয় দলীয় নেতৃবৃন্দ আমি তাদেরকে আমার পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানাই।

Check Also

রাজারহাটে জেলা পুলিশের উদ্যোগে ঘর পাচ্ছেন দৃষ্টি প্রতিবন্ধী খলিল

এ.এস.লিমন,রাজারহাট(কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি: তাং: ১৭-০৯-২১ইং। বাংলাদেশ পুলিশ বিভাগের সহযোগিতায় এবং কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশ বিভাগের উদ্যোগে ঘর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *