স্কুলপড়ুয়া ছাত্রের সামনে কারাফটকে মা-বাবার বিয়ে

দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ুয়া ছেলের সামনেই মায়ের বিয়ে হলো কারাফটকে। মূলত ধর্ষণ মামলার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামির সঙ্গে ভুক্তভোগী নারীর বিয়ে হয়েছে।

শনিবার রাজশাহীর কেন্দ্রীয় কারাগারের ফটকে এ ঘটনা ঘটেছে। বিয়ের শর্তে রয়েছে ৮ বছর ধরে কারাগারে বন্দী আসামির জামিন পাওয়ার কথা।

গত ২২ অক্টোবর বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ ধর্ষণ মামলার আসামি ও ভুক্তভোগীর মধ্যে বিয়ের আয়োজনের আদেশ দেন। উভয়পক্ষের সম্মতিতে এ আদেশ দেন আদালত।

রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারের জ্যেষ্ঠ তত্ত্বাবধায়ক সুব্রত কুমার বালা বলেন, আদালতের নির্দেশে আজ বেলা সাড়ে ১১টা থেকে এ আয়োজন শুরু হয়। এ সময় দুই পক্ষের ১৪ জন কারাফটকে উপস্থিত ছিলেন।

কারা সূত্রে জানা গেছে, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে হিন্দু বিয়ে নিবন্ধক বর ও কনের সই নেন। পুরোহিত বিয়ের মন্ত্র পাঠ করেন। মালাবদলে সম্পন্ন হয় বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা। এসময় ভাবলেশহীনভাবে দাঁড়িয়ে থাকেন ছেলে। কারাগারের পক্ষ থেকে কনের হাতে একটি কাতান শাড়ি উপহার দেন কারা তত্ত্বাবধায়ক।

২০১১ সালে ১৪ বছরের ওই মেয়েকে ধর্ষণ করে আসামি ব্যক্তি। তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ধর্ষণের পর মেয়েটি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে ওই ব্যক্তি বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানায়। এরপর ওই বছরের ২৫ অক্টোবর গোদাগাড়ী থানায় মেয়েটি ধর্ষণের মামলা করেন। ২০১২ সালের ১২ জুন ওই ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন আদালত।

Check Also

নড়াইলে করোনায় মৃত্যু ৪, শনাক্তের হার ৩৬.২৮ শতাংশ

উজ্জ্বল যায়, জেলা প্রতিনিধি, নড়াইল: গত ২৪ ঘন্টায় নড়াইলে ১১৩ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৪১ জন করোনা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *