১১ বছর পর ওয়েস্ট ইন্ডিজকে বাংলাওয়াশ

ঢাকা : আগের দুই ম্যাচে দেড়শর নিচেই গুটিয়ে গেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এই ম্যাচে লক্ষ্যটা প্রায় তিনশ ছোঁয়া। আগের দুই ম্যাচের মতো তৃতীয় ওয়ানডেতেও শুরুটা ভালো হলো না সফরকারীদের। তৃতীয় ওয়ানডেতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নামে তামিমের দল।

সোমবার (২৫ জানুয়ারি) বন্দরনগরী চট্টগ্রামে ওয়ানডে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে টস জিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ অধিনায়ক জেসন মোহাম্মদ বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। শুরুটা ভালো না হলেও চার অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানের হাফ সেঞ্চুরিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তৃতীয় ওয়ানডে বড় পুঁজি পেয়েছে বাংলাদেশ।

নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৬ উইকেট হারিয়ে ২৯৭ রান। যা চট্টগ্রামের মাটিতে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রান। এই ম্যাচে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন তামিম ইকবাল ৬৪, সাকিব আল হাসান ৫১, মুশিকুর রহিম ৬৪ এবং মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ৬৪ রান করেন।

বিশাল রানে লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতেই মুস্তাফিজের আঘাতে চাপে পড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। দলীয় ৭ রানেই সাজঘরে ফিরেছেন কেজোরান অটলি। গুড লেন্থে পরা অফ সুইংয়ের বল তার ব্যাটে আলতো ছোঁয়া লেগে চলে যায় উইকেটরক্ষক মুশফিকুর রহিমের হাতে। ৮ বলে ১ রান করে আউট হন ওটলি।

এরপর মিরাজের আগাত। আগের ম্যাচে করেছিলেন ক্যারিয়ার সেরা বোলিং। হয়েছিলেন ম্যান অব দ্য ম্যাচ। সেখান থেকেই যেন তৃতীয় ওয়ানডে শুরু করলেন মেহেদি হাসান মিরাজ। নিজের তৃতীয় ওভারেই পেয়েছেন উইকেট। ২৩ বলে ১১ রান করা কাইল মায়ারসকে সাজঘরে ফিরিয়েছেন এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলে।

এবার ক্যারিবিয়ান শিবিরে জোড়া আঘাত হেনেছেন সিরিজের প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা মোহাম্মদ সাইফউদ্দীন। অধিনায়ক জেসন মোহাম্মদকে (১৭) ফেরানোর পর এনক্রুমাহ বোনারকে (৩১) বোল্ড করেন তিনি। ফের মিরাজের বলে ৫ রানে বিদায় নেন জাহমার হ্যামিল্টন।

এরপর আক্রমনে আসেন সৌম্য। এসেই তুলে নিলেন ৪৭ রান করা রভম্যান পাওয়েলকে। ১১ রানে রান আউট হন আলজারি জোসেফ। এরপর আকিল হোসেইনকে শূন্য রানে ফিরিয়ে দেন সাইফউদ্দিন। রেমন্ড রেইফারকে রানে ফিরিয়ে দেন তাসকিন। ৪৪.২ ওভারে ১৭৭ রানে গুটিয়ে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল। ১২০ রানে বিশাল জয় পায় বাংলাদেশ।

এর ফলে ৩ ম্যাচ সিরিজে বাংলাওয়াশ হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এর মাধ্যমে দীর্ঘ ১১ বছর পর আবারো ক্যারিবীয়দের বাংলাওয়াশ করেছে টাইগাররা। এর আগে ২০০৯ সালের উইন্ডিজ সফরে এমন কীর্তি গড়েছিল লাল সবুজের প্রতিনিধিরা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: 

বাংলাদেশ: ২৯৭/৬ (৫০ ওভার) (তামিম ৬৪, সাকিব ৫১, মুশফিক ৬৪, মাহমুদউল্লাহ ৬৪*; জোসেফ ২/৪৮, রেইফার ২/৬১)।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ: ১৭৭/১০ (৪৪.২ ওভার)(রভম্যান পাওয়েল ৪৭, এনক্রুমাহ বোনারকে ৩১, সাইফউদ্দিন ৩/৫১, মুস্তাফিজ ২/২৪, মিরাজ ২/১৮।

ফলাফল : বাংলাদেশ ১২০ রানে জয়ী। ৩-০ তে সিরিজ জয়।

বাংলাদেশ একাদশ: তামিম ইকবাল (অধিনায়ক), লিটন দাস, নাজমুল হোসেন শান্ত, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক), মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, সৌম্য সরকার, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, তাসকিন আহমেদ এবং মুস্তাফিজুর রহমান।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ একাদশ: জর্ন ওটলে, সুনীল অ্যামব্রিস, জেসন মোহাম্মদ (অধিনায়ক), কাইল মায়ার্স, জাহমার হ্যামিল্টন, কিয়ন হার্ডিং, রভম্যান পাওয়েল, এনক্রুমাহ বোনার, রেমন্ড রেইফার, আলজারি জোসেফ এবং আকিল হোসেইন।

Check Also

৩৬ দল, গ্রুপ পর্ব নেই, বৃহস্পতিবারে ম্যাচ… আর কী পাল্টালো চ্যাম্পিয়নস লিগে?

গত শুক্রবার উয়েফা প্রতিযোগিতা কমিটির প্রস্তাবনা পাঠানো পরপরই নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল বড় পরিবর্তন আসছে চ্যাম্পিয়নস …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *