গর্ভাবস্থায় লক্ষণ দেখেই বুঝুন সন্তান ছেলে নাকি মেয়ে

গর্ভাবস্থায় প্রতিটি মা-বাবারই ইচ্ছে গর্ভের সন্তান ছেলে নাকি মেয়ে হবে তা আগে থেকে জানার। এখনকার আধুনিক চিকিৎসায় আল্ট্রাসোনোগ্রাফির সাহায্যে বাচ্চার লিঙ্গ জানা গেলেও তা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। অনেক ক্ষেত্রে আল্ট্রাসোনোতে বোঝাও যায় না বাচ্চা ছেলে নাকি মেয়ে।

তবে গর্ভাবস্থায় কিছু লক্ষণ দেখে খুব সহজেই আপনি জানতে পারবেন গর্ভের সন্তান ছেলে নাকি মেয়ে হবে। চলুন তবে জেনে নিই সেই লক্ষণগুলো সম্পর্কে-

১. ওজন বৃদ্ধিঃ পেটে ছেলে সন্তান থাকলে গর্ভাবস্থায় মায়ের ওজন স্বাভাবিকের থেকে অনেক বেড়ে যায় এবং পেটটা একটু অতিরিক্ত মাত্রায় ফোলা মনে হয়। প্রসঙ্গত, মেয়ে সন্তান পেটে থাকলে সাধারণত মায়ের সারা শরীরেই মেদের হার বৃদ্ধি পায়, এমনকি মুখেও। এই ভাবেই অনেকাংশে বুঝতে পারা সম্ভব হয় যে ছেলে হতে চলেছে না মেয়ে।

২. পায়ের পাতা ঠাণ্ডা হয়ে যাওয়াঃ এমন ধরনের লক্ষণের বহিঃপ্রকাশ ঘটলে মনে সন্দেহ রাখবেন যে ছেলে সন্তানের জন্ম হতে চলেছে।

৩. চুলের ঘনত্বে পরিবর্তন আসবেঃ মায়ের চুলের বৃদ্ধির হার দেখেও বলে দেয়া সম্ভব ছেলে হতে চলেছে না মেয়ে। একাধিক গবেষণা করে দেখা গেছে মায়ের চুলের গ্রোথ যদি স্বাভাবিকের থেকে বেশি হয়, তাহলে কোনও সন্দেহই থাকে না যে আসন্ন বাচ্চা ছেলে হতে চলেছে।

৪. বাম দিকে ফিরে ঘুমঃ কোন দিকে ফিরে ঘুমাচ্ছেন খেয়াল করুন! এই সময় মা এতটাই ক্লান্ত থাকেন যে শোয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ঘুম চলে আসে। তারপক্ষে এটা বোঝা সম্ভবই হয় না যে কোন দিকে ফিরে তিনি ঘুমাচ্ছেন। এক্ষেত্রে এই কাজটি করতে হবে স্বামীকে। যদি দেখেন আপনার স্ত্রী বাঁদিকে ফিরে ঘুমোচ্ছে, তাহলে আশা রাখতে পারেন যে আপনাদের ছেলেই হবে।

৫. পেটের আকারঃ আপনার পেট কি নিচের দিকে বেশি ঝুঁকে গেছে? এমনটা হলে ছেলে সন্তান হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

৬. হার্ট রেট ওঠা-নামাঃ গর্ভাবস্তায় চিকিৎসকেরা প্রায়শই বাচ্চার হার্ট রেট মেপে থাকেন। এই সময় যদি দেখা যায় বাচ্চার হার্ট রেট ১৪০ বিট/ প্রতি মিনিট রয়েছে, তাহলে মনে কোনো সন্দেহ রাখবেন না যে ছেলে বাচ্চাই জন্ম নিতে চলেছে।

৭. ইউরিন কালারঃ একাধিক গবেষণায় একথা প্রমাণিত হয়েছে যে গর্ভাবস্তায় মায়ের প্রস্রাবের রং যদি গাড় হলদেটে হয়, তাহলে বুঝতে হবে ছেলে সন্তান হতে চলেছে। আর যদি দেখেন উজ্জ্বল হলুদ রঙের প্রস্রাব হচ্ছে, তাহলে এই বিষয়ে কোনো সন্দেহ রাখবেন না যে আপনি মেয়ে সন্তানের মা হতে চলেছেন।

৮. ক্ষুধা বেশি লাগাঃ গর্ভাবস্থায় ক্ষিদে কি খুব বেড়ে গেছে? ছেলে সন্তান হওয়ার আগে এমনই সব লক্ষণের বহিঃপ্রকাশ ঘটে থাকে।

৯. ব্রেস্টের মাপঃ গর্ভাবস্তায় মায়ের ব্রেস্টের মাপ এমনিতেই বেড়ে যায়। কারণ এই সময় মায়ের শরীরে দুধের সঞ্চয় হতে শুরু করে। সাধারণত এই সময় ডান দিকের থেকে বাঁদিকের ব্রেস্ট একটু বেশি মাত্রায় ভারি হয়ে যায়। তবে যদি উল্টো ঘটনা ঘটতে দেখেন তাহলে নিশ্চিত থাকবেন আপনার ছেলে হতে চলেছে।

Check Also

যেভাবে এলো শ্রমিক দিবস

‘শ্রমিক-মালিক নির্বিশেষ, মুজিববর্ষে গড়বো দেশ’ এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সারা দেশে আজ পালিত হবে মহান …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *