ব্যক্তিগত গাড়িমুক্ত দিবস ২০২০ উপলক্ষ্যে আয়োজিত প্রবন্ধ, রচনা প্রতিযোগীতা ও ক্যাম্পেইনের পুরস্কার বিতরণ

 

ঢাকা শহরে গণপরিবহন, হাঁটা ও রিকশার মাধ্যমে ৯৩ শতাংশ চলাচল হলেও পরিকল্পনায় এই মাধ্যমগুলোর প্রাধান্য নিশ্চিত করা হচ্ছে না। যাতায়াতের চাহিদা বৃদ্ধির সাথে সাথে গণপরিবহন, সাইকেল ও হাঁটার পরিবেশ উন্নয়নের যে যোগান তা নিশ্চিত না হওয়ায় ব্যক্তিগত গাড়ির সংখ্যা ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফ্লাইওভার, এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে না করেও বর্তমান সড়কে যাতায়াত চাহিদা পূরণ করা সম্ভব। এক্ষেত্রে প্রয়োজন কার্যকরী উন্ন্য়ন প্রকল্প গ্রহণ। মানবিক শহর গড়তে স্বল্প দূরত্বের যাতায়াতের জন্য সাইকেলে ও হেঁটে নিরাপদে চলাচলের পরিবেশ তৈরি করা এবং অধিক দূরত্বের জন্য গণপরিবহন নিশ্চিত করা গেলে সমাজে সমতা নিশ্চিত করার পাশাপাশি ব্যক্তিগত গাড়ির ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ করা যাবে।

আজ মঙ্গলবার সকাল ১১.০০ টায় ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষ (ডিটিসিএ) এর আয়োজনে ও সার্ফ এক্সেল, দুরন্ত সাইকেল ও ওয়ার্ক ফর এ বেটার বাংলাদেশ ট্রাস্ট এর সহযোগীতায় বিশ্ব ব্যক্তিগত গাড়িমুক্ত দিবস ২০২০ উপলক্ষ্যে আয়োজিত প্রবন্ধ ও রচনা প্রতিযোগীতা ও ক্যাম্পেইনের পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে বক্তারা এ অভিমত ব্যক্ত করেন। আয়োজিত প্রবন্ধ ও রচনা প্রতিয়োগীতায় ৬ বিজয়ীদের দূরন্ত সাইকেলের পক্ষ থেকে পুরস্কার হিসেবে ৬টি সাইকেল প্রদান করা হয় এবং ক্যাম্পেইনে অংশগ্রহণকারী বিজয়ী ১০ জনকে ইউনিলিভার বাংলাদেশ এর পক্ষ থেকে গিফট হ্যাম্পার দেয়া হয়।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষ (ডিটিসিএ) এর নির্বাহী পরিচালক খন্দকার রাকিবুর রহমান। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ডিটিসিএ সাবেক অতিরিক্ত নির্বাহী পরিচালক মোঃ জাকির হোসেন মজুমদার, ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজ এর অধ্যক্ষ ব্রিগেডিয়ার জেনারেল কাজী শামীম ফরহাদ এবং ওয়ার্ক ফর এ বেটার বাংলাদেশ ট্রাস্ট এর পরিচালক গাউস পিয়ারী। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ডিটিসিএ এর সহকারী পরিবহন প্রকৌশলী মীর আহসান হাবিব।

সভাপতির বক্তব্যে ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষ (ডিটিসিএ) এর নির্বাহী পরিচালক খন্দকার রাকিবুর রহমান বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশন অনুযায়ী আমরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের মাঝে ট্রাফিক আইন কানুন বিষয়ে সচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালিত করছি। তারই অংশ হিসেবে গত বছর বিশ^ ব্যক্তিগত গাড়িমুক্ত দিবস উপলক্ষ্যে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের জন্য প্রবন্ধ ও রচনা প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। হাঁটা ও সাইকেলবন্ধব শহর গড়ে তুললে প্রতিবন্ধকতা ও সুযোগ সৃষ্টি করতে কি করা যায়, সে বিষয়ে আমরা কাজ করছি। আমরা সকলে যদি উদ্যোগী হই তবে ঢাকাসহ অন্যান্য শহরগুলোতে নিরাপদ পরিবহন ব্যবস্থা ও পথচারীবান্ধব পরিবেশ গড়ে তোলা সশ্ভব হবে।

ডিটিসিএ’র সাবেক অতিরিক্ত নির্বাহী পরিচালক মোঃ জাকির হোসেন মজুমদার বলেন, পথচারীবান্ধব শহর গড়ে তুলতে হবে। এ লক্ষ্যেই ডিটিসিএ তার কার্যক্রম পরিচালিত করে আসছে। ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ন্ত্রণে বিকল্প ব্যবস্থা নির্ধারন করতে হবে। এক্ষেত্রে শুধু গণপরিবহন ব্যবস্থা নিশ্চিত করলেই হবে না। অন্যান্য মাধ্যম যেমন রেল, নৌ , সাইকেল, রিকশা এবং হাঁটার সাথে এর সমন্বয় করতে হবে।

ওয়ার্ক ফর এ বেটার বাংলাদেশ ট্রাস্ট এর পরিচালক গাউস পিয়ারী বলেন, ব্যক্তিগত গাড়ির ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ করার জন্য হাঁটা ও সাইকেলবান্ধব পরিবেশ গড়ে তুলতে হবে। বিশে^র উন্নত দেশসমূহের যাতায়াত পরিকল্পনায় হাঁটা ও সাইকেলকে প্রাধান্য দেয়ায় তারা যানজট হ্রাসে সামর্থ হয়েছে। তিনি করোনা কারণে গত বছর বন্ধ থাকা প্রতি মাসের প্রথম শুক্রবার মানিক মিয়া এভিনিউতে আয়োজিত গাড়িমুক্ত সড়ক আবার আয়োজনের ক্ষেত্রে ডিটিসিএ’র সার্বিক সহযোগীতা কামনা করেন।

ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজ এর অধ্যক্ষ ব্রিগেডিয়ার জেনারেল কাজী শামীম ফরহাদ বলেন, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী সব সময় দেশের জন্য কাজ করে আসছে। দেশের উন্নয়ন প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ন্ত্রণে ডিটিসি’র যে উদ্যোগ এর সাথেও তিনি এবং তার স্কুল পাশে থাকবে বলে মত ব্যক্ত করেন।

Check Also

লিবিয়ায় মাদারীপুরের ২৪ যুবককে নির্যাতন, ভিডিও পাঠিয়ে টাকা দাবি

লিবিয়ার মাফিয়াদের কাছে বন্দি মাদারীপুরের ২৪ যুবককে শারীরিক নির্যাতন ভিডিও পরিবারের কাছে পাঠিয়ে টাকা দাবি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *