ভারতে সব রেকর্ড ভেঙে একদিনে ৪ লাখের বেশি আক্রান্ত

যুক্তরাষ্ট্র, চীন, ইতালি, স্পেন, ব্রাজিলে লাশের স্তূপ ফেলার পর বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ে এখন মৃত্যুপুরী ভারত। জনবহুল এ দেশটির প্রায় সব রাজ্যে এখন মানুষের করুণ আর্তনাদ-হাহাকার। প্রতিদিনই দেশটিতে এ ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত ও মৃত্যুর রেকর্ড হচ্ছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় আগের সব রেকর্ড ভেঙে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ৪ লাখ ২ হাজার ১১০ জন। এই প্রথম দেশটিতে দৈনিক সংক্রমণ ৪ লাখ ছাড়াল। এ দিন করোনায় মারা গেছেন ৩ হাজার ৫২২ জন। একই সময়ে করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ২ লাখ ৮৮ হাজার ৫৮৫ জন।

এ নিয়ে দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে ১ কোটি ৯১ লাখ ৫৭ হাজার ৯৪ জনের। মোট মৃত্যু বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ১১ হাজার ৮৩৫। আর সুস্থ হয়েছেন ১ কোটি ৫৬ লাখ ৭৩ হাজার ৩ জন।

এর আগে শুক্রবার (৩০ এপ্রিল) একদিনে দেশটিতে ৩ লাখ ৮৬ হাজার ৪৫২ জনের করোনা শনাক্ত এবং ৩ হাজার ৪৯৮ জনের মৃত্যু হয়। তার আগের দিন বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) ২৪ ঘণ্টায় তিন লাখ ৭৯ হাজারের বেশি শনাক্ত এবং ৩ হাজার ৬৪৫ জনের মৃত্যু হয়। অর্থাৎ মৃতের সংখ্যা গত দুইদিন কিছুটা কমলেও আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে।

নতুন শনাক্তের হিসাবে দেশটির রাজ্যগুলোর মধ্যে সবচেয়ে খারাপ অবস্থায় মহারাষ্ট্র। এ রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন শনাক্ত হয়েছেন ৬২ হাজার ৯১৯ জন। এদিন মহারাষ্ট্রে মারা গেছেন ৮২৮ জন রোগী। এছাড়া কর্ণাটকে ৪৮ হাজার ২৯৬ জন, কেরালায় ৩৭ হাজার ১৯৯ জন রোগী শনাক্ত হয়।

সংক্রমণের দিক থেকে সবচেয়ে খারাপ অবস্থায় থাকা ছয়টি রাজ্যে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত যথাক্রমে মহারাষ্ট্রে ৪৬ লাখ ২ হাজার ৪৭২ জন, কেরালায় ১৫ লাখ ৭১ হাজার ১৮৩ জন, কর্ণাটকে ১৪ লাখ ৮৮ হাজার ১১৮ জন, উত্তরপ্রদেশে ১২ লাখ ৫২ হাজার ৩২৪ জন, তামিলনাড়ুতে ১১ লাখ ৪৮ হাজার ৬৪ জন এবং দিল্লিতে ১০ লাখ ৭৪ হাজার ৯১৬ জন।

এরমধ্যেই রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী সত্যেন্দ্র কুমার জানান, শহরবাসীকে এখন দেয়ার মতো কোনো ভ্যাকসিন নেই। দিল্লি সরকার বেসরকারি সংস্থা থেকে ভ্যাকসিন কেনার চেষ্টা করছে। ভারতের রাজধানীর সরকারি কিংবা বেসরকারি কোনো হাসপাতালে নেই শয্যা। অক্সিজেনের জন্য হাহাকার তো আছেই।

ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভির তথ্য মতে, দিল্লিতে প্রতি চার মিনিট অন্তর অন্তর একজন করে করোনা রোগীর মৃত্যু হচ্ছে, আর এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত মারা গেছে ১৫ হাজারের বেশি মানুষ। আর মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১১ লাখের বেশি।

ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, শনিবার (১ মে) সকাল পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে মারা গেছেন ১৪ হাজার ২৬৬ জন। নতুন করে ৮ লাখ ৭১ হাজার ৫৯৮ জনের শরীরে এ ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে বিশ্বে মোট করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৩১ লাখ ৯৩ হাজার ৬৫৩ জনের এবং আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ কোটি ২০ লাখ ২ হাজার ৩৬৫ জন। এছাড়া সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১২ কোটি ৯২ লাখ ৭১ হাজার ৪৭ জন।

Check Also

হাসপাতালের চার তলা থেকে লাফিয়ে পড়ে দুই করোনা রোগীর আত্মহত্যা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: করোনা আক্রান্ত দুজন রোগী হাসপাতাল থেকে লাফিয়ে পড়ে আত্মহত্যা করেছে। মঙ্গলবার ভারতের গুজরাট …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *